1. munnait2020@gmail.com : newsdesk :
নিজেই টিকা দিয়ে তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে অসুস্থ করলেন প্রধান শিক্ষক - জাগো দর্পণ
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০১:৩৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ সংক্ষেপঃ
নেছারাবাদের কুড়িয়ানা বাজারে অগ্নিকান্ডে ২১টি দোকান পুড়ে ভস্মীভূত : কোটি টাকার ক্ষতি ৭ দফা দাবী নিয়ে রাস্তায় মানববন্ধনে পিরাজপুরের সরকারী কর্মচারীরা  পিরোজপুরের আশ্রয়নবাসী শিশুদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে কেক কাটলেন যুবলীগ নেতা পিরোজপুরে নানা আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন করলো জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ ঢাবি বিজয় ৭১ হল ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক হলেন পিরোজপুরের তাওহীদুল সরকারিভাবে সহযোগিতা পেয়ে ভালো থাকবে ইন্দুরকানীর ক্ষতিগ্রস্থ ১০ জেলে পরিবার পিরোজপুরে ওয়ার্ল্ড ভিশনের ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠান পিরোজপুরে বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য জেলার কৃতি সন্তান ড. কাজী সাইফুদ্দিন কাউখালীতে জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিবেশীর হামলায় গুরুতর আহত বৃদ্ধ প্রচুর বৃষ্টি উপেক্ষা করে পিরোজপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডে টিসিবির পন্য বিক্রি শুরু

নিজেই টিকা দিয়ে তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে অসুস্থ করলেন প্রধান শিক্ষক

জেলা প্রতিনিধি, পিরোজপুর
  • প্রকাশের সময় সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৪ জন দেখেছেন

পিরোজপুর পৌর এলাকায় মিম আক্তার (০৯) নামের তৃতীয় শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে নিজেই টিকা দিয়ে অসুস্থ করার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। অসুস্থ মিম পিরোজপুর পৌরসভার খামকাটা এলাকার মনির হাওলাদারের কন্যা ও ৬৬নং খামকাঁটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেণির ছাত্রী।

আজ রোববার (২৮ আগষ্ট) বিকেলে জেলা হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে বলে জানান খালা নুপুর আক্তার।

মিমের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রমা রানী মিত্র তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী মিম আক্তারকে রুমে ডেকে নিয়ে নিজেই একটি টিকা প্রদান করে। বাড়িতে ফিরে মিম প্রচন্ড জ্বর ও শ্বাসকষ্ট অনুভব করে। পরে তাকে প্রথমে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে ও উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে হাসপাতালের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক। কি কারনে এমনটা করেছেন প্রধান শিক্ষত তা জানেন না পরিবারের লোকজন। তবে উদ্দ্যেশ্য প্রনোদিত ভাবে প্রধান শিক্ষক এ কাজ করেছেন বলে এ ঘটনার বিচার দাবী করেছেন পরিবারের লোকজন।

আহত মিমের খালা নুপুর আক্তার জানান, দুই দিন ধরে মীম আক্তার প্রচন্ড জ্বরে আক্রান্ত। হাটা চলা করতে পারে না খাবারও খেতে পারে না। তাকে জিজ্ঞেস করলে সে বলে প্রধান শিক্ষক ম্যাডাম তাকে রুমে ডেকে নিয়ে জোড় করে একটা ইনসেকশন দেয় এতে সে অনেক ব্যাথাও পায়। আমরা এ বিষয়ে সুষ্ঠ তদন্ত করে ম্যাডামের বিচারের দাবী জানাই।

জেলা হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার নাজমীন আক্তার জানান, শিশুটির শ্বাসকষ্ট হচ্ছে তবে নির্দিষ্ট কোন কারন বোঝা যাচ্ছে না। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে এ বিষয়ে ৬৬নং খামকাঁটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রমা রানী মিত্র বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন। তিনি এ ঘটনার সাথে কোন প্রকার জড়িত নয় বলে জানায়।

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 JagoDarpan
Theme Customized BY JAGODARPAN