1. munnait2020@gmail.com : newsdesk :
মঠবাড়িয়ায় অধ্যক্ষকে জুতাপেটার ভিডিও ভাইরাল - জাগো দর্পণ
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৪২ অপরাহ্ন
সংবাদ সংক্ষেপঃ
মঠবাড়িয়ায় মাদক মামলায় মা ও মেয়ের সশ্রম কারাদন্ড নাজিরপুরে ভিমরুলের কামড়ে বৃদ্ধার মৃত্যু ইন্দুরকানীতে গলায় ফাঁস লাগানো ভাসমান অজ্ঞাত যুবতীর মরদেহ উদ্ধার কাউখালীতে ২শ পিচ ইয়াবাসহ গ্রেফতার-২ পিরোজপুরে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ ৩ শত পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করার মামলায় রাগীব আহসান ও তার ৩ ভাই ৭ দিনের রিমান্ডে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সম্পাদকের জন্মদিন উপলক্ষে পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা এহসান গ্রুপের অভিনব প্রতারণা সুদমুক্ত বিনিয়োগের ধারণা দিয়ে ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ // সহযোগীসহ এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আটক পিরোজপুরে গ্রাহককে ডেকে নিয়ে মারধরের ঘটনায় এহসান গ্রুপ পরিচালকের দুই ভাই গ্রেফতার

মঠবাড়িয়ায় অধ্যক্ষকে জুতাপেটার ভিডিও ভাইরাল

জেলা প্রতিনিধি, (মঠবাড়িয়া) পিরোজপুর
  • প্রকাশের সময় মঙ্গলবার, ১৭ আগস্ট, ২০২১
  • ৬৫ জন দেখেছেন

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলা সাফা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে একই কলেজের অফিস সহকারী কর্তৃক জুতা পেটানোর ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

সোমবার (১৬ আগষ্ট) অফিস চলাকালীন সময়ে অফিস কক্ষে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বিনয় কৃষ্ণ বলকে অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন জুতাপেটা করেন। অভিযুক্ত অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন ধানিসাফা এলাকার আলম বেপারীর স্ত্রী।

এদিকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষকে জুতা পেটার ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ায় কলেজ শিক্ষক ও নেতৃবৃন্দের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা গেছে।

কলেজ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাফা ডিগ্রি কলেজের অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন কলেজের কোন নিয়ম কানুন মানেন না। এমনকি জাতীয় শোক দিবসেও কলেজে আসেননি তিনি। স্থানীয় ও প্রভাবশালী হওয়ায় ফরিদা ইয়াসমিন প্রায় সময়ই অধ্যক্ষের কথা অমান্য করে চলেন।

এ ব্যাপার কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বিনয় কৃষ্ণ বল জানান, সোমবার সকল শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের এ্যাসাইনমেন্ট সংক্রান্ত কাজে কলেজে আসার জন্য বলেন। শিক্ষার্থীরা ওই দিন যথারীতি এ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে আসে। অধ্যক্ষ অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিনকে এ্যাসাইনমেন্ট জমা দেওয়া শিক্ষার্থীদের নাম রেজিস্ট্রার খাতায় লিখে রাখতে বললে সে কোন কর্ণপাত করেনি।

তিনি আরো জানান, আমি রেজিস্ট্রার খাতা নিয়ে অফিস সহকারীর টেবিলে গেলে ১০/১২ জন শিক্ষার্থী ও স্টাফদের উপস্থিতিতে অভিযুক্ত অফিস সহকারী ফরিদা ইয়াসমিন হঠাৎ করেই পায়ের জুতা খুলে আমাকে পেটানো শুরু করে। পরে শিক্ষার্থীরা আমাকে উদ্ধার করে এবং বর্তমানে আমি মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছি। তাছাড়া এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া চলমান আছে।

সাফা ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী নুরুন্নাহার বলেন, অধ্যক্ষ স্যার এ্যাসাইনমেন্ট জমা দেওয়া শিক্ষার্থীদের নাম রেজিস্ট্রার খাতায় এন্ট্রি করতে বলেন। কিন্তু অফিস সহকারী ম্যাম এতে অপরাগতা প্রকাশ করে হঠাৎ কিছু বুঝে ওঠার আগেই পায়ের জুতা খুলে স্যারকে পিটানো শুরু করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অঃ দাঃ) বশির আহমেদ জানান, এ ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য আমরা মর্মাহত। ভুক্তভোগী অধ্যক্ষ আইনের আশ্রয় নিলে আমরা তাকে সার্বিক সহযোগিতা করব।

জেলা শিক্ষা অফিসার ইদ্রিস আলী আজিজি জানান, এ ধরনের ঘটনা শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য অনাকাঙ্খিত এবং হুমকিস্বরূপ। আমি এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে প্রশাসনিকভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতির মঠবাড়িয়া উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও মঠবাড়িয়া মহিউদ্দিন আহমেদ মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আজিম উল হক জানান, ঘটনাটি জঘন্যতম অপরাধ। শিক্ষক নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহা. নুরুল ইসলাম বাদল জানান, আমরা ঘটনা বিষয়ে জেনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। এ ব্যাপারে থানায় কোন লিখিত অভিযোগ পাই নাই। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 JagoDarpan
Theme Customized BY JAGODARPAN