1. munnait2020@gmail.com : newsdesk :
যেভাবে কয়েকদিন খাবার ছাড়া পানিতে ভেসে বেচে বাড়ি ফিরেছিলেন ইন্দুরকানীর ২ নিখোঁজ জেলে - জাগো দর্পণ
সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৭:২৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ সংক্ষেপঃ
পিরোজপুরে শিল্পকলা একাডেমীর আয়োজনে চিত্রাঙ্কন ও আবৃত্তি প্রতিযোগীতা পিরোজপুরে জেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব এর জন্মদিন পালিত মঠবাড়িয়ায় বাঁধ রক্ষার দাবীতে রাস্তায় শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী পুরানো ভাড়া চাওয়ায় রিক্সা চালককে পিটিয়ে আহত করলো দফাদার ভোলায় ছাত্রদলের সভাপতিকে হত্যার প্রতিবাদে পিরোজপুরে ছাত্রদলের কাফন মিছিল মেয়েকে হত্যার বিচারের দাবিতে বাবার থানায় মামলা ভোলায় পুলিশের গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা হত্যার প্রতিবাদে পিরোজপুরে যুবদলের বিক্ষোভ পুলিশী বাধায় পন্ড পিরোজপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমীর আয়োজনে নদী কেন্দ্রীক এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পিরোজপুরে শিল্পকলা একাডেমীর আয়োজনে প্রশিক্ষক-প্রশিক্ষনার্থীদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান জিএলটিএস সহ আরো ৮টি সংস্থার আয়োজনে সম্পন্ন হল এসডিজি ইউথ সামিট ২০২২

যেভাবে কয়েকদিন খাবার ছাড়া পানিতে ভেসে বেচে বাড়ি ফিরেছিলেন ইন্দুরকানীর ২ নিখোঁজ জেলে

জাগো দর্পণ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় সোমবার, ২ আগস্ট, ২০২১
  • ২১৩ জন দেখেছেন
পানিতে ৩ থেকে ৪ দিন ভাসছি। না ছিল খাবার মতো পানি না ছিল খাবার অন্য কিছু। সাগরের পানি ছিল লবনাক্ত যা মুখে নেয়ার মতো না। চিন্তাও করি নাই যে বেচে বাড়ি ফিরতে পারবো। আল্লার কাছে শুকরিয়া যে বেচে বাড়ি আসতে পারছি। যা আসলেই কল্পনা করতে পারি নাই। ভাসছি শুধু একটা বয়া নিয়া। তাও ঢেউয়ে বার বার ছুটে যাচ্ছিল। ২ থেকে ৩ ঘন্টা শুধু পানিতে সাতরে বেরিয়েছি। অবশেষে একটি জেলে ট্রলারের সহযোগীতায় উদ্ধার হয়ে বাড়িতে ফিরে আসছি। কথাগুলো কান্না জড়িত কন্ঠে বলছিলেন পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার কালাইয়া গ্রামের ইব্রাহিম মোল্লার পুত্র সেলিম মোল্লা।
উদ্ধার হবার পরে তিনি আরো বলেন, যেদিন মাছ ধরতে সাগরে বের হইছি সেদিন সকালে আমার লোকের কাছে জিজ্ঞাসা করছিলাম যে নদীর অবস্থা ভালো না অনেক তুফান, কোন সিগনাল আছে নাকি? সে বলে নাই। পরে আমি বললাম সাগরে কি নামবো নাকি পাড়ে ধরবো? সে বলল নামো সমস্যা নাই। নদীর অবস্থা খারাপ দেখে আমরা নৌকা পাড়ে নিয়ে গ্রাফি দিয়া দাড়াইলাম। দক্ষিন দিক থেকে হঠাৎ দেখলাম যে নৌকার থেকে বড় ঢেউ আসতেছে। যারা নিচে ঘুম ছিল তাদের বললাম বের হও সবাই। এই ঢেউয়ে হয় ট্রলার খাবে না হলে মানুষ খাবে। ট্রলারে ঢেউ ধাক্কা দিলে সব ছিটকে পড়ে যাই। আমার ভাই রশিদ বয়া ছুড়ে দিলে সেটা আমি সাতরে ধরি। আমরা ট্রলার উদ্ধারের অপেক্ষায় বয়া ধরে ভাসতে বাসতে অপেক্ষা করলাম। পরে একজন একজনকে ধরে বয়া নিয়ে ভাসতে থাকি। আমরা আমাদের নৌকা থেকে দুরে ভাসতে ভাসতে হারিয়ে যাই। পরে ২/৩ দিন পানিতে ভাসার পরে দুরে দেখি কুয়াশার মতো কি একটা দেখা যায়। মনে করেছিলাম আল্লাহ অন্য নৌকার সাহায্যে বাচাইছে। কিন্তু সে নৌকা দেখি কতক্ষন পূর্বে যায় কতক্ষন পশ্চিমে যায়। অবশেষে দূরবীন দিয়া তারা আমাদের বয়াসহ ভাসতে দেখে কাছে উদ্ধার করে বাড়ি পাঠানোরও ব্যবস্থা করি।
উদ্ধার সেলিম মোল্লার স্ত্রী রেকসোনা বেগম বলেন, আমরা হঠাৎ করেই বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজ পাই যে তাদের ট্রলার ডুবে গেছে। আমরা পরিবার থেকে ধারনা করেছিলাম তাদের আর ফিরে পাবো না। আল্লাহর কাছে কত কান্না করছি, দোয়া করছি। তারপর ৪/৫দিন পরে শুনি যে ২টি লোক পাওয়া গেছে। আমার এক বেয়াই গেছে পান্নু শিকদার সে বলল যত টাকা খরচ হোক আমাকে শুধু মানুষ ২টিকে চাই। আমরা ধরেই নিয়েছিলাম তারা আর নাই, তাদের আর ফেরৎ পাবো না।
উদ্ধার একই গ্রামের সালাম হাওলাদারের পুত্র মিরাজ হাওলাদার জানান, পানিতে সাড়ে ৪ দিন না খাইয়া ভাসছি। মঙ্গলবার ৫টার দিকে দেশ থেকে বঙ্গোপসাগরের উদ্দেশ্যে রওনা করে গেছি। পরদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জাল ফেলছি। দুপুরের পর তুফান আসছে। মুল মাঝিকে নৌকার সাথে উল্টে ফেলে দিয়েছে ঢেউ। নৌকার ভিতর থেকে যে যেভাবে পারছি বের হইছি। আমাকে তুফানে ঠেলে নিয়া গেছে। আরেক লোক দেখি পানিতে বাসে তারপর তাকে বাচাতে আমিও লাফ দিয়েছি। অনেক সাতরে একটা বয়া পেয়েছি। সেই বয়া ধরে আল্লাহকে বললাম বাচাও। বয়া নৌকা দিয়ে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলে সেই বয়া ধরে ২ রাত ৩ দিন একভাবে খাওয়া দাওয়া কিছুই নাই একভাবে ভাসছি। ভাসতে ভাসতে কোতায় গেছি নিজেই দিক করতে পারি নাই। ১২ ঘন্টা ট্রলার চালিয়ে আসাদের পেয়েছে একটি মাছ ধরার ট্রলার। তাদের দেখে হাত জাগিয়েছিলাম বলেই আজ বাড়ি ফিরছি। তারা দুরবীন দিয়ে বয়াসহ ভাসতে দেখে আমাদের উদ্ধার করে।
উদ্ধার মিরাজের পিতা সালাম হাওলাদার জানান, দূর্ঘটনার খবর যে সময় পেয়েছি তখন মঙ্গলবার বিকাল ৫টা। আমার ছেলে তো ৩ জন। এটি মেঝো ছেলে। যখন খবর পাইছি উদ্দার হইছে তখন বিভিন্ন জায়গায় দৌড়াইছি, কোথায় আছে? কিভাবে আছে? বিভিন্নভাবে খোজ নিছি।
ইন্দুরকানী উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুৎফন্নেছা খানম জানান, বঙ্গোপসাগরে নিখোঁজ হওয়া ২ জেলে জেলে উদ্ধার হওয়া সম্পর্কে আমরা জেনেছি। তারা খূব প্রকৃুতিক বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছিল। তাদের উদ্ধারের খবর পাওয়া মাত্রই আমরা তাদের জন্য সরকারী খাদ্য সহায়তা নিয়ে হাজির হয়েছি। তাদের আমরা আশ্বাস দিয়ে এসেছি তাদের যতটুকু খাদ্য সহায়তা প্রয়োজন উপজেলা প্রমাসনের পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য সহায়তা আমরা তুলে দিব। উদ্ধার হওয়া জেলেদের আমরা প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা দিয়েছি এবং ট্রলারে যে ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে আমাদের কাছে আবেদন করলে আমরা তাদের যথাযথ সহায়তার চেষ্টা করবো।

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 JagoDarpan
Theme Customized BY JAGODARPAN