1. munnait2020@gmail.com : newsdesk :
স্বাধীনতার ৫০ বছরে আজও মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতির অপেক্ষায় দিন কাটে - জাগো দর্পণ
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০২ অপরাহ্ন
সংবাদ সংক্ষেপঃ
মঠবাড়িয়ায় মাদক মামলায় মা ও মেয়ের সশ্রম কারাদন্ড নাজিরপুরে ভিমরুলের কামড়ে বৃদ্ধার মৃত্যু ইন্দুরকানীতে গলায় ফাঁস লাগানো ভাসমান অজ্ঞাত যুবতীর মরদেহ উদ্ধার কাউখালীতে ২শ পিচ ইয়াবাসহ গ্রেফতার-২ পিরোজপুরে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ ৩ শত পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করার মামলায় রাগীব আহসান ও তার ৩ ভাই ৭ দিনের রিমান্ডে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সম্পাদকের জন্মদিন উপলক্ষে পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনা এহসান গ্রুপের অভিনব প্রতারণা সুদমুক্ত বিনিয়োগের ধারণা দিয়ে ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ // সহযোগীসহ এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আটক পিরোজপুরে গ্রাহককে ডেকে নিয়ে মারধরের ঘটনায় এহসান গ্রুপ পরিচালকের দুই ভাই গ্রেফতার

স্বাধীনতার ৫০ বছরে আজও মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতির অপেক্ষায় দিন কাটে

জাগো দর্পণ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় শুক্রবার, ২৬ মার্চ, ২০২১
  • ৮৭ জন দেখেছেন

বাড়ির ভিতর ঢুকতেই সরু একটি পথ। জিন্নশিন্ন বাড়িটির ভিতরে দুটি দোঁচালা ভাঙ্গা চোরা টিনশেটের ঘর। ঘরের সামনে যেতেই শেষ বয়সের এক বয়জৈষ্ঠ্যর মুখ। নাম তার আয়ান খাঁ। ঢাকার দোহার উপজেলার নয়াবাড়ি ইউনিয়নের নয়ন খা’র ছেলে এই আয়ান খাঁ। মুক্তিযুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণ করেও স্বীকৃতি না পাওয়া এক মুক্তিযোদ্ধা। শেষ বয়সে আজও স্বীকৃতির অপেক্ষায় দিন কাটে তার। তার আকুতি মৃত্যুর আগে যেন প্রধানমন্ত্রী তাকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেন।

১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে নিজের জীবন বাজি রেখে সাড়া দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন তরুন আয়ান খা। মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুরের বোয়ালী ক্যাম্প থেকে ট্রেনিং নিয়ে ক্যাপ্টেন আব্দুল হালিম চৌধুরী ও দিরাজউদ্দিন কমান্ডারের নেতৃত্বে দোহার ও নবাবগঞ্জের বিভিন্ন জায়গায় যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। এরপর বোয়ালী ক্যাম্পে আবারো যোগ দেন। দেশ স্বাধীন হওয়া পর্যন্ত বোয়ালি ক্যাম্পের অধিনেই ছিলেন তিনি। ৯ মাস যুদ্ধ শেষে দেশ স্বাধীন হলে ফিরে আসেন দোহারের নিজ গ্রামে। জীবন যুদ্ধে বেঁচে থাকার জন্য কৃষিকাজকে পেশা হিসেবে বেছে নেন।

যুদ্ধ পরবর্তীতে মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করা হয়। সেই সময় তার যুদ্ধকালিন সহযোদ্ধারা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেও আয়ান খাঁ এখনো পাইনি সেই স্বীকৃতি। একটু স্বীকৃতির আশায় বিভিন্ন কাগজপত্র নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরেছেন। উপজেলা মুক্তিযুদ্ধকালীন কমান্ডার রজ্জব আলী কমান্ডারের অধিনে ২নং সেক্টরে যুদ্ধ করেছে এমন প্রত্যয়নপত্রও রয়েছে তার। আছে মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশ সশস্ত্রবাহিনীর অধিনায়ক মহম্মদ আতাউল গনী ওসমানীর স্বাক্ষরিত দেশরক্ষা বিভাগের স্বাধীনতা সংগ্রামের সনদপত্র এসব প্রত্যয়নপত্র থাকার পরও সর্বশেষে বাছাই পর্বেও বাদ পরে এই মুক্তিযোদ্ধার নাম। স্বাক্ষাতপর্বে পাঁচজন সহযোদ্ধা স্বাক্ষী দেওয়ার পরও উপযুক্ত স্বাক্ষী নেই এমন অযুহাতে তার আবেদন বাতিল করা হয়। কেমন স্বাক্ষী হলে পাবেন মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতি, উঠবে তালিকায় নাম এমন প্রশ্ন রণক্ষেত্রের যোদ্ধা আয়ান খাঁর।

বৃদ্ধ বয়সে এসেও সংসারে ঘানি টানতে হচ্ছে তাকে। একমাত্র ছেলে বিয়ে করে স্ত্রীকে নিয়ে আলাদা থাকছেন। ফলে তিন মেয়ে, দুই নাতিন ও স্ত্রী নিয়ে কোন রকম দিন কাটছে স্বীকৃতি না পাওয়া এই মুক্তিযোদ্ধার। কৃষিকাজ করে বাবা বড় দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছিলেন। দুই মেয়েকেই স্বামীরা ডির্ভোস দিলে সন্তানদের নিয়ে এখন বাবার বাড়িতেই থাকেন মেয়েরা।

শত অভাব ও কষ্টের মাঝেও ছোট মেয়েকে পড়াশোনা করাচ্ছেন। ছোট মেয়ে রুনা এবার জয়পাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। বাবার স্বপ্ন বড় দুই মেয়ের মত যেন ছোট মেয়ের কপাল এভাবে না পুড়ে। তাই শত অভাবেও লেখাপড়া করাচ্ছেন বাবা। সাত সদস্যর এই পরিবারে একমাত্র উপার্জন করেন সত্তর বয়সী যোদ্ধা এই বাবা।

একই সাথে যুদ্ধ করেছেন নয়াবাড়ির ইদ্রিস আলী ও আব্দুল হালিম মাস্টার। আয়ান খাঁ মুক্তিযোদ্ধার হিসেবে স্বীকৃতি ও ভাতা না পাওয়ায় তারাও বিস্মিত।

নয়াবাড়ি ইউনিয়নের কমান্ডার মনির আহমেদ মোল্লা জানান, আয়ান খাঁ মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। তিনি সরাসরি যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। তার সাথে যুদ্ধে যাওয়া অনেকেই আজ মুক্তিযোদ্ধার ভাতাও পান। কিন্তু তিনি আজও মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পান নাই।

সহযোদ্ধারা স্বীকৃতির পাশাপাশি ২০০৫ সাল থেকে ভাতা কার্ড পেলেও নিজে না পাওয়ার আক্ষেপ রয়েছে আয়ান খাঁ। বয়সের কারনে এখন আর আগের মতো কাজকর্ম করতে পারেন না। মরার আগে স্বীকৃতি ও ভাতা কার্ড পেলে নিশ্চিন্তে মরতে পারেন বলে জানান রণক্ষেত্রের বীর এই মুক্তিযোদ্ধা। প্রধানমন্ত্রীর কাছে এমন আকুতিই জানান তিনি।

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও খবর
© All rights reserved © 2021 JagoDarpan
Theme Customized BY JAGODARPAN